1. admin@dainiksomoy24.com : admin :
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৯:৩৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
২০১৮ সাল থেকে সংবাদ পরিবেশনে জনপ্রিয় দৈনিক সময় ২৪.কম। সারা বাংলাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা এবং স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে যোগাযোগ করুন 01716605694
শিরোনাম :
সাকিব খান যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পেয়েছে হাতীবান্ধায় ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ইভিএম এর উপর জনগণের কোন আস্থা নাই : বাংলাদেশ ন্যাপ চিত্রনায়িকা অঞ্জনার জন্মদিনে জায়েদ খানের শুভেচ্ছা পদ্মা সেতুতে স্পিডগান সিসিটিভি বসানোর পরে বাইক চলাচলে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বরগুনায় হাতকড়াসহ পলাতক মাদক মামলার আসামি গ্রেফতার সৌদি আরবে হজ্জ যাত্রী ভিক্ষা করে বাংলাদেশী হাজী আটক পদ্মা সেতু‌ রেলিংয়ের নাট‌ বল্টু খুলে আলোচিত বায়েজিদের গ্রা‌মের বাড়ীতে ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা পিডিএম প্রধান ফজলুর রেহমান বলেছেন ইমরান খানকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য তিনি দায়ী পদ্মা সেতুতে পেঁয়াজবাহী একটি ট্রাক উল্টে চালকসহ তিনজন আহত হয়েছেন

অবৈধভাবে তথ্য পাচার ও ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে মিজানুর ও বাছিরের কারাদণ্ড

দৈনিক সময় ২৪
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
  • ৪৫ বার পঠিত

ষ্টাফ রিপোর্টার:

অবৈধভাবে তথ্য পাচার ও ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে দুদকের দায়ের করা মামলায় পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমানের ৩ বছরের কারাদণ্ড ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) বরখাস্ত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরের ৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে বাছিরকে ৫ বছরের সাজা খাটতে হবে। বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।

এদিন সকাল ১০টা ৪০মিনিটে দুই আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।

এরপর তাদের উপস্থিতিতে বেলা ১১টা ১৩মিনিটে বিচারক রায় পড়া শুরু করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৯ সালের ২৪ জুন সম্পদের তথ্য গোপন ও অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মিজানুরের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। এর অনুসন্ধান কর্মকর্তা ছিলেন দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছির। মামলার তদন্ত চলাকালে ডিআইজি মিজান অভিযোগ করেন, অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ থেকে রেহাই দিতে দুদকের পরিচালক এনামুল বাছির তার কাছ থেকে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নিয়েছেন। এ অভিযোগ ওঠার পর বাছিরকে সরিয়ে দুদকের আরেক পরিচালক মো. মঞ্জুর মোরশেদকে অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হয়। ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে ফানাফিল্যাকে প্রধান করে তিন সদস্যের দলকে অনুসন্ধানের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১-এ মামলাটি করেন দুদকের পরিচালক শেখ মো. ফানাফিল্যা। এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তাও তিনি। ২০২০ সালের ১৯ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের পরিচালক শেখ ফানাফিল্যা আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর ওই বছরের ১৬ এপ্রিল আদালত দুই আসামির অব্যাহতির আবেদন খারিজ করে অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে বিচারের আদেশ দেন। এরপর গত ১০ ফেব্রুয়ারি যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত রায়ের জন্য ২৩ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

ফেসবুকে আমরা