1. admin@dainiksomoy24.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৫:০৫ অপরাহ্ন
নোটিশ :
২০১৮ সাল থেকে সংবাদ পরিবেশনে জনপ্রিয় দৈনিক সময় ২৪.কম। সারা বাংলাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা এবং স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে যোগাযোগ করুন 01716605694
শিরোনাম :
হাতীবান্ধায় বন্যাদুর্গত মানুষকে ত্রাণসহায়তা দিলেন অ্যাডভোকেট উজ্জ্বল পাটোয়ারী লেংগুড়া ইউনিয়নে ফুলবাড়ী এলাকায় বন্যায় বিধ্বস্থদের মাঝে সাংবাদিকদের খাদ্য বিতরণ পঞ্চগড় গুচ্ছগ্রামের ৫০টির বেশি পরিবার পানিবন্দি সরকারি আইন অমান্য করে পদ্মা সেতুতে ছবি উঠালেন চিত্রনায়িকা শিরিন শিলা জালিয়াতি করে জমি রেজিট্রির চেষ্টা দলিল লেখকের লাইসেন্স স্থগিত ডেন্টাল চিকিৎসকদের দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত দেশাত্মবোধকে পদদলিত করা কোনোক্রমেই ন্যায় সঙ্গত নয় : আ স ম আবদুর রব নুরাবাদ ও জাহানপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি অনুমোদন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়ে নয়টি নির্দেশনা সাকিব খান যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পেয়েছে

নিরাপদে আছেন ক্যাডেট ফারজানা ইসলাম

দৈনিক সময় ২৪
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৫ মার্চ, ২০২২
  • ৪৫ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি:

ইউক্রেনে রকেট হামলায় আক্রান্ত বাংলাদেশি জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধিতে থাকা রাজৈরের ক্যাডেট ফারজানা ইসলাম মৌ বর্তমানে নিরাপদে রয়েছেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। ইউক্রেনে হামলা শুরুর পর থেকেই উদ্বেগে দিন কাটাচ্ছিল ক্যাডেট ফারজানা ইসলাম মৌয়ের পরিবারের লোকজন। তারা বৃহস্পতিবার রাতে খবর পায়, ফারজানা নিরাপদে আছেন। স্বস্তি ফিরে আসে পরিবারটিতে।

ফারজানা ইসলাম মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলা সদরের ফকরুল ইসলামের মেয়ে। পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ফারজানা ২০১৫ সালে রাজৈর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাস করেন। এরপর ঢাকার একটি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে চট্টগ্রাম মেরিন একাডেমিতে ভর্তি হন।

লেখাপড়া শেষ করে ইন্টার্ন করার জন্য এক বছর আগে ‘এমভি বাংলার সমৃদ্ধি’ জাহাজে করে বিভিন্ন দেশে অবস্থান করেন। সর্বশেষ তুরস্ক থেকে রওনা হয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি জাহাজটি ইউক্রেনের অলিভিয়া বন্দরে পৌঁছায়। ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে যুদ্ধ শুরু হওয়ায় জাহাজটি বন্দর ত্যাগ করতে পারেনি।

এ অবস্থায় বুধবার জাহাজে রকেট হামলা হয়। হামলায় বরগুনার বেতাগী উপজেলার হাদিসুর নিহত হন। জাহাজে বাংলাদেশি আরো ২৮ জন ছিলেন। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে ফারজানা ফেসবুক লাইভে এসে বিপদের কথা জানিয়ে নিজেদের নিরাপদে নিয়ে নেওয়ার আকুতি জানান। তারপর রাতে তাঁদের উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে নেওয়া হয়।

ফারজানার বড় ভাই ফাহাদ মাহামুদ লিমন বলেন, ‘যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই আতঙ্কে ছিলাম। ঠিকমতো ছোট বোনের সঙ্গে যোগাযোগও করতে পারিনি। বৃহস্পতিবার রাতে ছোট বোনের সঙ্গে কথা হয়েছে। সে নিরাপদে আছে। তবে কোথায় কী অবস্থায় আছে তা জানি না।

ফারজানার মা মাহামুদা বিউটি বলেন, ‘ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরুর পর থেকে মেয়ের চিন্তায় ঠিকমতো গোসল করতে পারিনি, খেতে পারিনি। রাতে ঘুমাতে পর্যন্ত পারিনি। বৃহস্পতিবার রাতে মৌর সঙ্গে কথা হয়েছে। সে নিরাপদে আছে। আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি, আমার মেয়ে যেন নিরাপদে দেশে ফিরে আসতে পারে।

ফারজানা ইসলাম মৌ লাইভে বলেছিলেন, ‘আমি ইঞ্জিন ক্যাডেট মৌ। বাংলার সমৃদ্ধি থেকে বলছি। আমাদের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার স্যার মারা গেছেন। আমাদের শিপে বম্বিং হয়েছে। আমরা এখনো শিপের মধ্যে আছি। আমরা সবাই চাচ্ছি এখান থেকে বের হতে। আপনারা প্লিজ আমাদের কোনো একটি উপায়ে বের করুন। আমরা এখানে থাকতে চাচ্ছি না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরা