1. admin@dainiksomoy24.com : admin :
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
২০১৮ সাল থেকে সংবাদ পরিবেশনে জনপ্রিয় দৈনিক সময় ২৪.কম। সারা বাংলাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা এবং স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে যোগাযোগ করুন 01716605694
শিরোনাম :
সাকিব খান যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পেয়েছে হাতীবান্ধায় ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ইভিএম এর উপর জনগণের কোন আস্থা নাই : বাংলাদেশ ন্যাপ চিত্রনায়িকা অঞ্জনার জন্মদিনে জায়েদ খানের শুভেচ্ছা পদ্মা সেতুতে স্পিডগান সিসিটিভি বসানোর পরে বাইক চলাচলে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বরগুনায় হাতকড়াসহ পলাতক মাদক মামলার আসামি গ্রেফতার সৌদি আরবে হজ্জ যাত্রী ভিক্ষা করে বাংলাদেশী হাজী আটক পদ্মা সেতু‌ রেলিংয়ের নাট‌ বল্টু খুলে আলোচিত বায়েজিদের গ্রা‌মের বাড়ীতে ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা পিডিএম প্রধান ফজলুর রেহমান বলেছেন ইমরান খানকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য তিনি দায়ী পদ্মা সেতুতে পেঁয়াজবাহী একটি ট্রাক উল্টে চালকসহ তিনজন আহত হয়েছেন

বিশ্বের ১৭টি দেশে পাচার করা টাকা দেশে ফেরত আনার বিষয়ে কাজ করছি : অর্থমন্ত্রী

দৈনিক সময় ২৪
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১১ জুন, ২০২২
  • ৫৩ বার পঠিত

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : এইচ এম বিল্লাল হোসেন রাজু

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটকে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সহায়ক হিসেবে অভিহিত করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বলেছেন, এই বাজেট বাস্তবায়ন হলে দেশের জনগণ, ক্রেতা-ভোক্তা তথা ব্যবসায়ীরা উপকৃত হবে। কর্মসংস্থান বাড়বে। অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে।

 

 

 

 

 

 

শুক্রবার রাজধানীর ওসমানী মিলনায়তনে বাজেট-পরবর্তী এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

এ সময় পাচার হওয়া টাকা ফেরত আনার এখনই সময় বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী। বলেন, যারা সরকারে দেয়া সুযোগটি গ্রহণ করবেন তাদের কোনো প্রশ্ন করা হবে না।

 

 

 

 

 

দেশ থেকে পাচার করা টাকা ফেরত আনার চেষ্টা করছি। আমাদের কোনো বাধা দেবেন না , এমন কথাও বলেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

 

প্রতি বছর বাজেট ঘোষণার পরদিন প্রস্তাবিত বাজেটের বিষয় যেসব সমালোচনা তৈরি হয়, তার জবাব দিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

 

 

 

 

 

 

২ ঘণ্টার এই অনুষ্ঠানে বেশি রভাগ সময়জুড়ে অর্থ পাচার ইস্যুতে অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত অন্য মন্ত্রীরাও এ বিষয়ে সরকারে অবস্থান ব্যাখ্যা করেন।

 

 

 

 

 

 

 

পাচার করা অর্থ দেশে ফেরত আনার বিষয়ে বাজেটে যে সুযোগ দেয়া হয়েছে তা নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন অর্থমন্ত্রী। এ প্রশ্নের জবাব দেন অর্থমন্ত্রী ছাড়াও কৃষিমন্ত্রী, অর্থ সচিব, এনবিআর চেয়ারম্যান।

 

 

 

 

 

 

 

 

একজন সাংবাদিক জানতে চান, সেনাসমর্থিত সরকারের আমলে ট্রুথ কমিশনে এ ধরনের সুযোগ দেয়ার পর সুবিধাভোগীদের হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। এবার যে সুযোগ দেয়া হয়েছে তাদেরও কী একই পরিণতি হবে?

 

 

 

 

 

 

 

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাচার করা টাকা দেশে আনার বিষয়ে দণ্ড মওকুফ করে দেয়া হয়। ইন্দোনেশিয়া এ ধরনের সুযোগ দেয়ার ফলে ৯৬০ কোটি ডলার দেশে ফেরত আসে এবং তারা সফল হয়। আমরা প্রত্যাশা করি, বাংলাদেশের কেউ এ সুযোগ গ্রহণ করলে তাকে কোনো প্রশ্ন করা হবে না।

 

 

 

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, শুধু ঘুষ আর দুর্নীতি করলেই কালো টাকা হয় না। অনেক ক্ষেত্রে টাকা অপ্রদর্শিত থেকে যায়। সেই টাকা আয়কর রিটার্নে প্রদর্শন করা হয় না। আমরা এমন সুযোগ দিয়েছি, যাতে সুযোগটি গ্রহণ করে সেই অপ্রদর্শিত টাকা বৈধ করার পর তার আয়কর রিটার্নে দেখাতে পারবে।

 

 

 

 

 

 

কৃষিমন্ত্রী বলেন, যখন ট্রুথ কমিশন করা হয়েছিল, তখন দেশে কোনো বৈধ সরকার ছিল না। আমরা সাংবিধানিক সরকার। আইনের শাসন ও সংবিধান মেনে চলি। আমরা প্রতিশ্রুতি রক্ষা করি।

 

 

 

 

 

 

 

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘ট্রুথ কমিশনে যে সুযোগ দেয়া হয়েছিল, সেটা কোনো আইনসংগত ছিল না। সরকারের দেয়া সুযোগটি যারা গ্রহণ করবেন, তাদের আইন দিয়ে রক্ষা করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কাজেই ট্রুথ কমিশনের সঙ্গে এটাকে মেলানো যাবে না।

 

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, করদাতা অজ্ঞতার কারণে তার রিটার্নে অনেক সময় সব আয় প্রদর্শন করে না। এবারের বাজেটে তাদের সেই সুযোগ দেয়া হয়েছে। আমরা আশা করছি, ইতিবাচক সাড়া পাওয়া যাবে।

 

 

 

 

 

 

অর্থমন্ত্রী বলেন, এ সুযোগ দেয়াকে কালো টাকা বলি না। আমরা বলি অপ্রদর্শিত আয়। বাজেটে এই অপ্রদর্শিত আয়ই বৈধ করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। কোনো কালো টাকাকে সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

 

 

 

 

 

পাচার করা টাকা বৈধ করার সুযোগ দেয়া অনৈতিক হয়েছে কি না- এই প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘টাকার ধর্ম আছে। টাকার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে যেখানে সুখ-বিলাস আছে, সেখানে চলে যায়। এটা স্যুটকেসে করে পাচার হয় না। ইলেট্রনিকস টুলসের মাধ্যমে যায়।

 

 

 

 

 

 

 

জার্মানি, ফ্রান্স, ইউকে, নরওয়ে, ভারতসহ বিশ্বের ১৭ দেশে এ সুযোগ দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। বলেন, ‘এ সুযোগ দেয়ার ফলে দেশগুলোতে ভালো ফল পাওয়া গেছে। কাজেই আমরাও আশা করছি এবার বাজেটে যে সুযোগ দেয়া হয়েছে, তার ইতিবাচক ফল পাওয়া যাবে।

 

 

 

 

 

 

আরেক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি এ কথা বলছি না যে টাকা পাচার হয় না। কিন্তু পাচারকারীকে ধরতে হলে তথ্য-প্রমাণ লাগবে। তা না হলে কোনো ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব নয়। তবে আমরা বসে নেই। পাচারকারীদের ধরার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে।

 

 

 

 

 

আরেক প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘টাকা দেশ থেকে পাচার হয়েছে কি না, সেই তথ্য আমাদের কাছে নেই। তবে চেষ্টা চলছে ফেরত আনার। আমাদের বাধা দেবেন না। বাধা দিয়ে আপনাদের (সংবাদমাধ্যমকে) লাভ কী?

 

 

 

 

 

বিশ্বের ১৭টি দেশে পাচার করা টাকা দেশে ফেরত আনার বিষয়ে দণ্ড মওকুফ করে দেয়া হয়েছে। আমরা এখন সে কাজটি করছি।

 

 

 

 

 

 

এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, অর্থ পাচারকারীদের সুযোগ দেয়ার ফলে যারা নিয়মিত ও সৎ করদাতা তাদের প্রতি অবিচার করা হয়েছে কি না।

 

 

 

 

 

 

 

 

উত্তরে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নিয়মিত ট্যাক্স পরিশোধকারীদের অসম্মান করা হবে না। আমরা জাহান্নামে যাওয়ার জন্য কাজ করি না। এ সুযোগ আগেও দেয়া হয়েছিল। প্রয়াত অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান এ সুযোগ দিয়েছিলেন। আমি মনে করি, অর্থনীতির মূলধারায় পাচার করা টাকা বৈধ করে ফিরিয়ে আনার জন্য এটিই ভালো সময়। আমার বিশ্বাস, যে সুযোগটি দেয়া হয়েছে সবাই তা গ্রহণ করবেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

অন্য এক প্রশ্নে মন্ত্রী জানান, অর্থ পাচার কেলেঙ্কারির দায়ে অভিযুক্ত পি কে হালদারকে ভারত সরকার ফেরত দেবে। একইভাবে পাচারকৃত টাকাও ফেরত পাওয়া যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

ফেসবুকে আমরা