1. admin@dainiksomoy24.com : admin :
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৮ অপরাহ্ন
নোটিশ :
২০১৮ সাল থেকে সংবাদ পরিবেশনে জনপ্রিয় দৈনিক সময় ২৪.কম। সারা বাংলাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা এবং স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে যোগাযোগ করুন 01716605694

প্রকৃতি সেজেছে এক অপরূপ সৌন্দর্যে

দৈনিক সময়ের পত্রিকা ২৪.কম
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২২
  • ৭৬ বার পঠিত

 

ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি : কামরুজ্জামান রুবেল

 

 

 

 

 

 

 

 

ময়মনসিংহের নান্দাইলে বড়বড়িয়া বিশাল বিল জুড়ে এখন ফুটছে গোলাপি রঙের অসংখ্য পদ্মফুল।বিলটি ফুলে ফুলে ভরে গেছে। যত দূর চোখ যায় শুধু গোলাপি রঙের আভা। দিনের আলোর স্পর্শে এ রঙ যেন আরও ঝলমলে হয়ে ওঠে।প্রাকৃতিক ভাবে জন্ম নেয়া পদ্ম ফুলের অপরূপ সৌন্দর্যে হারিয়ে যায় মন। যেন প্রকৃতি সেজেছে এক অপরূপ সৌন্দর্যে।সারাদিনই নান্দাইল সহ আশপাশের উপজেলা থেকে ছুটে আসছেন মানুষ। তারা ছবি তুলছেন ভিডিও করছেন। কেউ কেউ ফুল ছিঁড়েও বাড়িয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

 

 

 

 

 

 

বিলটি এখন সাধারণ মানুষের বিনোদনের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে।
নান্দাইল পৌরসভার চারিআনিপাড়া ও ভাটি কান্দাপাড়া এলাকার মধ্যবর্তী এই বড়বড়িয়া বিল। নান্দাইল বাইপাস সড়ক থেকে বিলটির মধ্য দিয়ে ভাটি কান্দাপাড়া এলাকায় লাগোয়া একটি আঁকাবাকা কাঁচা সড়ক।পদ্ম ফুলের পাশাপাশি বিলটির সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলেছে সাদা বক পাখি, পানকৌড়ি সহ বিভিন্ন ধরনের পাখি।

 

 

 

 

 

 

 

স্থানীয় বাসিন্দা আঃকদ্দুস
দৈনিক সময় টুয়েন্টিফোর ডটকম পত্রিকার প্রতিনিধিকে বলেন, এক সময় আমাদের এই রূপসী বাংলায় অনেক পদ্ম দেখা যেত। প্রতি বর্ষার মৌসুমে বিলটিতে পদ্ম ও শাপলা ফুল ফুটে। এবার বৃষ্টি না হওয়ায় নিন্মাঞ্চলে পানি না থাকায় তেমন শাপলা ফুল দেখা যাচ্ছে না। তবে প্রচুর পদ্ম ফুল ফুটেছে। কিন্তু বর্তমান সময়ে বিল জলাশয় ফেলার কারণে পদ্মাফুল বিলুপ্তির পথে চলে যাচ্ছে।শাকিব হাসান নামে একজন বলেন, তেমন পানি না থাকায় দর্শণার্থী ও স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীসহ বিভিন্ন এলাকার শিশুরা বিলের পানিতে নেমে পদ্ম ফুল তুলে ফেলছে। এতে করে বিলের সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে।

 

 

 

 

 

উপজেলার ৩নং নান্দাইল ইউনিয়ন থেকে আসা মো: সুমন মিয়া বলেন, লোকের মুখে শুনে পদ্ম ফুল দেখতে এসেছি। দৃষ্টি নন্দন সারি সারি পদ্ম ফুল দেখে খুবই আনন্দ পেলাম। তবে অনেকেই পদ্ম ছিড়ে নিয়ে যাচ্ছে, যা দেখতে খুবই খারাপ লাগছে।

 

 

 

 

জান্নাতুল নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ফুটন্ত ফুলগুলো অনেকেই তুলে নিয়ে গেছে। প্রতিদিন লোকজন আসে শুধু ফুল তুলতেই। এছাড়াও ছেলে-মেয়েরা বিভিন্ন রকমের পোষাক পড়ে সাজু গুজু করে এখানে এসে টিকটক করে। ফুল ছিঁড়ে হাতে নিয়ে ছবি তোলেন। আমাদের খুব আনন্দ লাগে। কিন্তু ফুল গুলো তুলে না নিয়ে গেলে আরও বেশি আনন্দ উপভোগ করতে পারতাম।

 

 

 

প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেয়া পদ্মফুল দেখতে প্রতিদিন বিভিন্ন স্থান থেকে দর্শনার্থীরা আসছেন। বিনোদন প্রিয় লোকদের কাছে এই স্থানটি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরা