1. admin@dainiksomoy24.com : admin :
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:১২ অপরাহ্ন
নোটিশ :
২০১৮ সাল থেকে সংবাদ পরিবেশনে জনপ্রিয় দৈনিক সময় ২৪.কম। সারা বাংলাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা এবং স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে যোগাযোগ করুন 01716605694
শিরোনাম :
বোদা উপজেলায় নৌকা ডুবে নারী ও শিশুসহ ১৪ জনের মৃত্যু ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাম্পাদক হল ছেড়ে পালিয়েছে হাফেজ সালেহ আহমাদ তাকরিমকে গণসংবর্ধনা দেবে ঢাকার কোরআনপ্রিয় জনতা ঢাকা ওয়াসার চার কর্মকর্তাকে পদোন্নতি হোমনায় দুই কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যাবসায়ী রফিকুল আটক বহিষ্কৃত ও অব্যাহতিপ্রাপ্ত নেতাকর্মীদের ফিরিয়ে দলে ফিরিয়ে আনতে নির্দেশ রওশন এরশাদের বাংলাদেশকে ১৯ হাজার কোটি টাকার ঋণ দেবে এডিবি মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বিএনপি নেতা দুলু লঘুচাপের প্রভাবে আগামী তিন দিন সারা দেশে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে : আবহাওয়া অধিদপ্তর নেপালকে ফাইনালে ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ

পিকে হালদারসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেছেন আদালত

দৈনিক সময়ের পত্রিকা ২৪.কম
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৪৯ বার পঠিত

 

নিজস্ব প্রতিনিধি:

 

 

 

 

 

 

 

 

কানাডায় ৮৩ কোটি টাকা পাচার এবং ৪২৬ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় গ্লোবাল ইসলামী (সাবেক এনআরবি গ্লোবাল) ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার (পিকে) হালদারসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার ১০ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. নজরুল ইসলাম এ চার্জগঠনের আদেশ দিয়ে আগামী ২২ সেপ্টেম্বর মামলাটিতে সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ঠিক করেছেন।

 

 

 

 

 

 

 

এদিন কারাগারে থাকা আসামি অবন্তিকা বড়াল, শংখ বেপারী, সুকুমার মৃধা, অনিন্দিতা মৃধার পক্ষে আইনজীবী শাহিনুর ইসলাম তাদের অব্যাহতি চেয়ে শুনানি করেন। আদালত তা নামঞ্জুর করেন।

 

 

 

 

 

 

মামলায় পিকে হালদারসহ ১০ আসামি পলাতক আছেন। পলাতক অপর ৯ আসামি হলেন- লিলাবতী হালদার (পি কে হালদারের মা), পূর্ণিমা রানী হালদার, উত্তম কুমার মিস্ত্রি, অমিতাভ অধিকারী, প্রিতিশ কুমার হালদার, রাজিব সোম, সুব্রত দাস, অনঙ্গ মোহন রায় ও স্বপন কুমার মিস্ত্রি। এর আগে গত ২৭ মার্চ আদালত এ মামলার পলাতক ১০ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

 

 

 

 

 

 

 

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, দেশের চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে পি কে হালদার নামে-বেনামে বিভিন্ন কোম্পানির নামে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা বের করে নেন। এই টাকা আর ফেরত না আসায় ওই চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে পারছে না।

 

 

 

 

 

 

প্রতিষ্ঠান চারটি হলো- ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি (বিআইএফসি)। টাকা বের করার আগে শেয়ার কিনে তিনি এসব প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণ নেন।

 

 

 

 

 

এই আর্থিক কেলেঙ্কারি জানাজানি হয় ২০২০ সালের শুরুতে। আর তিনি দেশ ছাড়েন ২০১৯ সালের শেষ দিকে। পলাতক অবস্থায় ২০২০ সালের ৮ জানুয়ারি পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রায় ২৭৫ কোটি টাকা অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থপাচারের অভিযোগে মামলা করে দুদক।

 

 

 

 

 

 

 

 

দুদকের অভিযোগপত্রে বলা হয়, পি কে হালদার নামে-বেনামে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ৬ হাজার ৭৯০ শতাংশ জমি কিনেছেন। এই সম্পদের বাজারমূল্য দেখানো হয়েছে ৩৯১ কোটি ৭৫ লাখ ৮১ হাজার ১২ টাকা। বর্তমান বাজারদর অনুযায়ী এই সম্পদের মূল্য ৯৩৩ কোটি টাকা। এর মধ্যে নিজের নামে তিনি জমি কিনেছেন ৪ হাজার ১৭৪ শতাংশ। এর দাম দলিলে দেখানো হয়েছে ৬৭ কোটি ৯৪ লাখ ২০ হাজার ৯৩০ টাকা। অথচ এই সম্পদের বর্তমান মূল্য ২২৮ কোটি টাকা। এ ছাড়া ধানমন্ডিতে তার নামে দুটি ফ্ল্যাট রয়েছে।

 

 

 

 

 

 

পি কে হালদার পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আইএলএফএসএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন। গ্রাহকদের অভিযোগের মুখে বছরের শুরুতেই পি কে হালদারের বিদেশ পালান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  

ফেসবুকে আমরা